আজ শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** ময়মনসিংহে সুটকেসের ভেতর যুবকের লাশ * ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের মাস্টার্স পরীক্ষা স্থগিত * দিনাজপুরে বজ্রপাতে নিহত ৬ * দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে 'সুপার ম্যালেরিয়া' * রিয়ালের পথের ইতি টানতে চান বেনজেমা * মধ্যবাড্ডায় অগ্নিকাণ্ডে মায়ের মৃত্যু, ২ সন্তান দগ্ধ * পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই: বাড়ছে ক্ষোভ, ঝিমিয়ে পড়া

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.০৮.২০১৭

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ঘাতকরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা,

মূল্যবোধ এবং রূপকল্পকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল। কিন্ত তাদের সেই হীন উদ্দেশ্য সফল হয়নি।

তিনি মঙ্গলবার ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।  

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় এ উপলক্ষে দূতাবাস থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করা হয়।  
এছাড়াও জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনসহ বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন ও দূতাবাস সমূহে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে গতকাল জাতির পিতার ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়।  

কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকালে দূতাবাস ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর ভিডিও প্রদর্শন এবং বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের জন্য দোয়া।

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৫ আগস্ট সকাল সোয়া ৯টায় স্থায়ী মিশনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালনের কর্মসূচি শুরু করা হয়। এরপর ১৫ আগস্টের শহীদদের উদ্দেশ্যে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং তাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।  

বিকেলে মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে আলোচনা সভার শুরুতেই জাতির পিতার জীবন ও কর্মের ওপর প্রণীত একটি ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।  

আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত খুলনা-২ আসনের এমপি মিজানুর রহমান, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো: জাহিদ আহসান রাসেল এমপি , হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মো: আবু জাহির এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো: আব্দুর রহমান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা দেন জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।

আলোচনা শুরুর আগে অডিটোরিয়ামে রক্ষিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করা হয়।  

 

এদিকে ওয়াশিংটনে দূতাবাসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।  

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে তার কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন। ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় পরিনত হবে।  

আলোচনা সভায় অন্যান্য বক্তারা স্বাধীনতা বিরোধী কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় ঘটা নৃশংস হত্যাকান্ডের কঠোর সমালোচনা করেন। তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পিছনে এসব কুচক্রী মহলের গভীর ষড়যন্ত্র ছিল এবং ভবিষ্যতে সকলকে একসাথে এ ধরনের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানানো হয়।

আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ওপর নির্মিত প্রামাণ্য চলচ্চিত্র ‘মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধু’ প্রদর্শন করা হয়। এছাড়া দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর ও বাংলাদেশ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।  

জাতীয় শোক দিবস ২০১৭ এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২-তম শাহাদৎ বার্ষিকী বাংলাদেশ দূতাবাস, আদ্দিস আবাবাতে যথাযোগ্য মর্যাদায় এবং ভাবগম্ভীর পরিবেশে স্মরণ ও পালন করা হয়। দিবস উপলক্ষে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণ, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ, দোয়া ও প্রার্থনা, আলোচনা সভা, শোক দিবসের ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ কবিতা আবৃত্তি ও সঙ্গীত পরিবেশন এবং প্রামান্য চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।